30.8 C
Rajbari
সোমবার, জুন ২৭, ২০২২
Homeজাতীয়চট্টগ্রাম বিভাগবাসা জমে থাকা গ্যাসের আগুন কেড়ে নিলো দুইবোনের প্রাণ

বাসা জমে থাকা গ্যাসের আগুন কেড়ে নিলো দুইবোনের প্রাণ

ডেস্ক রিপোর্টঃ চট্টগ্রাম রাত্তারপুলের চান্দাপুকুর এলাকায় গ্যাস পাইপ লিকেজের কারণে বাসায় জমা গ্যাস থেকে বিস্ফোরণে প্রাণ গেলো দুইবোনের ।

গত ৩ ফেব্রুয়ারি সকালে পাইপ লিকেজের কারণে বাসায় গ্যাস জমে যায়। সেই গ্যাস থেকে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

বিস্ফোরণে নিহতরা হলে সাবরিনা খালেদা (২৩) ও সামিয়া খালেদা (১৮) তারা আপন দুই বোন।

সাবরিনা ও সামিয়ার পিতা মো. আলাউদ্দীন তারা চট্টগ্রামের বাকলিয়ায় একটি ভবনের পঞ্চম তলায় থাকতেন।

তাদের পরিবার কখনো ভাবতেই পারেনি, এই ভবনে গ্যাসের আগুনে মারা যাবেন সাবরিনা-সামিয়া। কিন্তু তাই হলো। দুই বোন একে একে না ফেরার দেশে চলে গেলেন।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়।

বড় বোন সাবরিনার শরীরের ৫৬ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল। তিনি রোববার (৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে মারা যান।

বড় বোনের মৃত্যুর একদিন পরই চলে যান সামিয়াও। সোমবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে তার মৃত্যু হয়। তার ৩৫ শতাংশ দগ্ধ হয়েছিল। দুই বোনেরই শ্বাসনালী পোড়া ছিল বলে জানান চিকিৎসক।

শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটের আবাসিক সার্জন এস এম আইয়ুব হোসেন জানান, চট্টগ্রাম থেকে এই দুই বোন দগ্ধ হয়ে ৫ ফেব্রুয়ারি বার্ন ইউনিটে এসেছিল।

সাবরিনা ও সামিয়ার বাবা মো. আলাউদ্দীন বলেন, তারা চট্টগ্রামের রাহাত্তারপুল চান্দাপুকুর পাড় এলাকায় থাকেন। সেখানে ৩ ফেব্রুয়ারি সকালে পাইপ লিকেজের কারণে বাসায় গ্যাস জমে যায়। সেই গ্যাস থেকে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

তিনি আরও বলেন সাবরিনা চট্টগ্রামের সরকারি হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজের ইংরেজি বিভাগের অনার্স তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। আর সামিয়া ছিলেন এইচএসসির শিক্ষার্থী।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুই বোনের মৃত্যু হয়।

একই সাথে দুইবোনের মৃত্যুতে পরিবারের মাঝে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

RELATED ARTICLES

Most Popular

Recent Comments