32.4 C
Rajbari
বুধবার, জুন ২৯, ২০২২
Homeরাজবাড়ীগোয়ালন্দে প্রধান সড়ক কেটে অবৈধভাবে ড্রেন নির্মাণের অভিযোগ

গোয়ালন্দে প্রধান সড়ক কেটে অবৈধভাবে ড্রেন নির্মাণের অভিযোগ

মো. সাজ্জাদ হোসেন গোয়ালন্দ  প্রতিনিধি

প্রভাবশালীদের স্হাপনা রক্ষার চেষ্টা

গোয়ালন্দ পৌরসভার প্রধান সড়ক কেটে সংকুচিত করে ড্রেন নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কের কোন ক্ষতি না করে এর পাশ দিয়ে ড্রেন নির্মাণের কথা থাকলেও একাধিক স্থানে প্রভাবশালীদের স্থাপনা রক্ষায় আড়াই থেকে তিন ফুট সড়ক ভেঙে ড্রেন নির্মাণ করা হচ্ছে। এ ঘটনায় স্থানীয়দের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে , গোয়ালন্দ শহরের জলাবদ্ধতা দুর করা ও পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা সহজতর করতে প্রায় ১২ কোটি টাকা ব্যায়ে ৭টি ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। এর মধ্যে সাড়ে ৩ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের ৬টি আরসিসি ও ১ হাজার ৬১৬ মিটা দৈর্ঘের একটি নন আরসিসি ড্রেন রয়েছে। তবে শহরের গোয়ালন্দ বাসস্ট্যান্ড হতো তোরাইর মোড় পর্যন্ত ৯৯৬ মিটার দৈর্ঘ্যের আরসিসি ড্রেন নির্মাণ নিয়ে বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ উঠেছে। এই ড্রেনটি বিদ্যমান পাঁকা সড়কের পর হতে ৫ ফুট ৮ ইঞ্চি প্রশস্ত ও গড়ে ৭ ফুট গভীর করে করার কথা রয়েছে।

বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর ও গোয়ালন্দ পৌরসভা কাজটির তত্ত্বাবধান করছে। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কেকেআর এন্টারপ্রাইজ চলতি বছরের এপ্রিল মাসে এ ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু করে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, গোয়ালন্দ পৌর শহরের প্রধান সড়কের গোয়ালন্দ বাসস্ট্যান্ড থেকে বাজার অভিমুখে ড্রেন নির্মাণের জন্য বাসস্ট্যান্ড থেকে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ভেঙ্গে ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু করেছিল ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। কিন্তু কিছুদূর পর সাবেক অধ্যক্ষ খন্দকার আব্দুল মুহিত হিরা ও আনোয়ার হোসেনের বাড়ির সম্মুখে শতবর্ষী পুরাতন পাকা সড়ক প্রায় ৩ ফুট অংশ কেটে ড্রেন নির্মাণের জন্য খনন করা হয়।

এতে করে স্থানীয় বাসিন্দারা বিক্ষুদ্ধ হয়ে গত শনিবার (২৮ মে) কাজটি বন্ধ করে দেয়।খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আজিজুল হক খান মামুন সরেজমিনে গিয়ে নিয়ম ভেঙে গুরুত্বপূর্ণ সড়কের ক্ষতি করে ড্রেন নির্মাণ কাজে কর্মরত ৪ শ্রমিককে আটক করেন। প্রায় ৩ ঘন্টা আটক থাকার পর মুচলেকা দিয়ে তারা ছাড়া পান।

স্থানীয় শামীম মোল্লা,আমিনুল ইসলাম সহ কয়েকজন অভিযোগ করে জানান, ইতিমধ্যে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ভেঙে ড্রেন নির্মাণ কাজ অনেকটা এগিয়েছে। কিন্তু ২/১ জন প্রভাবশালী ব্যাক্তির স্বার্থ রক্ষায় কেন এভাবে ব্যস্ততম সড়কের ক্ষতি করা হচ্ছে তা আমাদের বোধগম্য নয়। এ ধরনের স্বেচ্ছাচারিতার কারণে এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ হয়ে ড্রেন নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়।

অভিযোগের বিষয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি মোহাম্মদ আলী মিয়া দাবি করেন, কারো জায়গা বা স্হাপনা রক্ষা করার জন্য নয়,রাতের বেলার ভেকু মেশিন দিয়ে মাটি গর্ত করার সময় অসাবধানতাবশত রাস্তার কিছু অংশ কেটে গেছে। এটা আমরা ঠিক করে দেব।

এ প্রসঙ্গে গোয়ালন্দ পৌরসভার মেয়র মো. নজরুল ইসলাম মন্ডল বলেন, নকশার বাইরে গিয়ে সড়ক কাটার অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথে আমরা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেই। এছাড়া মূল সড়কের কোন ধরনের ক্ষতি না করে শিডিউল অনুযায়ী শহরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এই ড্রেনটি নির্মাণের জন্য ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশনা দিয়ে চিঠি দিয়েছি।এ কাজে কোন ধরনের স্বজনপ্রীতি বা অনিয়ম মেনে নেয়া হবে না।

RELATED ARTICLES

Most Popular

Recent Comments