29.9 C
Rajbari
শনিবার, জুন ২৫, ২০২২
Homeঅপরাধচেতনানাশক ঔষুধ চায়ের সাথে মিশিয়ে ইজিবাইক ছিনতাই করে ওরা-বললেন পুলিশ সুপার

চেতনানাশক ঔষুধ চায়ের সাথে মিশিয়ে ইজিবাইক ছিনতাই করে ওরা-বললেন পুলিশ সুপার

দীর্ঘদিন ধরে নিরীহ ইজিবাইক চালকদের চায়ের সাথে চেতনানাশক ঔষুধ মিশিয়ে তা কৌশলে সেবন করাতো এরা।

এরপর ইজিবাইকের চালকেরা অজ্ঞান হয়ে পড়লে চক্রের সদস্যরা কৌশলে ইজিবাইকটি নিয়ে সটকে পড়ে এবং পরবর্তীতে ইজিবাইকগুলো অন্যত্র বিক্রি করে।

বুধবার (৯ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১ টায় রাজবাড়ী জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে জেলার ক্লুলেস ডাবল মার্ডার মামলার রহস্য উদঘাটনসহ সংঘবদ্ধ ইজিবাইক চোর চক্রের সদস্য গ্রেফতার ও লুন্ঠিত ইজিবাইক উদ্ধার নিয়ে এভাবেই সাংবাদিকদের প্রেসব্রিফিং করেন রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার এম এম শাকিলুজ্জামান।

সংঘবদ্ধ এই চক্রের মধ্যে একজন ভ্রাম্যমান চা বিক্রেতা সেজে এ কাজে সহযোগিতা করতো বলেও জানান জেলা পুলিশ সুপার।

গ্রেফতারকৃত চোরচক্রের সদস্যরা হলো- মো: আকাশ ওরফে আকাশ মাদবর (১৯), মো: রবিন হোসেন (২২), মো: নিজাম উদ্দিন ওরফে সালমান (৩০), মো: আকরাম হোসেন (২৬) ও মো: সাদ্দাম হোসেন (২৬)।

প্রেসব্রিফিংয়ে জানানো হয়, গত ২৬ জানুয়ারি রাজবাড়ীর কালুখালি ও গোয়ালন্দ থানা এলাকা থেকে অজ্ঞান করে মো: ইসমাইল শেখ ও সুজন পাঠান নামের দুজন ইজিবাইক চালকের কাছ থেকে ইজিবাইক ছিনতাই করে নিয়ে যায় এ চক্রটি।

পরবর্তীতে এই দুই ইজিবাইক চালকই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। পরে এদের পরিবার পৃথক পৃথক ভাবে স্ব স্ব থানায় এজাহার দায়ের করলে তৎপ্রেক্ষিতে দুটি হত্যা মামলা রুজু করা হয়।

এরপরই পাংশা সার্কেল সুমন কুমার সাহা, কালুখালী থানার ওসি মো: নাজমুল হাসানের নেতৃত্বে এসআই (নি:) মো: হাসানুর রহমানসহ সঙ্গীয় অন্যান্য অফিসার ও ফোর্সের সমন্বয়ে একটি চৌকস আভিযানিক দল তদন্ত শুরু করেন।

এরপরেই তথ্য-প্রযুক্তির সহায়তায় ঘটনার সাথে জড়িত আসামীদের ঢাকা জেলা, ঢাকা সিটি কর্পোরেশন এবং পাবনা জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে এদের গ্রেফতার করা হয়।

প্রেসব্রিফিংয়ের সময় উপস্থিত ছিলেন অতি‌রিক্ত পু‌লিশ সুপার মো. সালাহউদ্দীন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মঈন উদ্দিন চৌধুরী, সি‌নিয়র সহকারি পু‌লিশ সুপার সুমন কুমার সাহা প্রমুখ।

এই সংঘবদ্ধ চক্রটি একই কৌশলে দেশের বিভিন্ন স্থানে একই ধরণের আরো বহু অপরাধ কর্ম সংঘটন করেছে বলল স্বীকার করেছে। মামলা দুটির তদন্ত অব্যাহত রয়েছে এবং বিস্তারিত তদন্ত শেষে সকল অপরাধীকে আইনের আওতায় আনা হবে।

মইনুল হক মৃধা-রাজবাড়ী

RELATED ARTICLES

Most Popular

Recent Comments